স্বরুপকাঠীর দৈহারী ইউনিয়নের ইউ পি গৌতম বুদ্ধ রায়ের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ।


admin প্রকাশের সময় : জুলাই ১২, ২০২২, ১১:৪৯ পূর্বাহ্ন /
স্বরুপকাঠীর দৈহারী ইউনিয়নের ইউ পি গৌতম বুদ্ধ রায়ের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ।

স্বরুপকাঠী (পিরোজপুর) প্রতিনিধিঃ পিরোজপুর জেলার নেছারাবাদ উপজেলার ৬নং দৈহারী ইউনিয়নে মেম্বর গৌতম বুদ্ধের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। সমাজে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য বারবার নির্বাচিত জননন্দিত এই ইউপি সদস্য কে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার লক্ষ্যে কতিপয় অসাধু লোক উঠে পরে লেগেছে। তারা মিডিয়া কর্মিদের ভূল তথ্য দেয়। বিষয়টি যে গুজব ছাড়া আর কিছুই ছিলোনা সেটির প্রমান মিলল মিডিয়া কর্মীদের সুসংগঠিত তথ্য সংগ্রহের অভিযানে। কয়েকদিন আগে ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মেম্বার গৌতম বুদ্ধ রায়ের বিরুদ্ধে ভিবিন্ন অনলাইন পোর্টালে অর্থ আত্মসাৎ নামে একটি খবর প্রকাশিত হয়।প্রকাশিত খবরটি ছিল মিথ্যা বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত। সমাজে তাকে হেয় প্রতিপন্ন করতেই কেউ বা কারা সাংবাদিক দের ভুল তথ্য দিয়েছে বলে দাবি করেন মেম্বর গৌতম বুদ্ধ রায়। তিনি বলেন গত অর্থ বছরে পিরোজপুর জেলা পরিষদ থেকে গনকপাড়া বাজারে টয়লেট নির্মানের জন্য ২লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। ৬ মাস আগে অগ্রিম ১লক্ষ টাকা দেয়। টাকা পাবার পর থেকে আমি চেয়ারম্যান, তহসিলদার, স্হানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গদের নিয়ে স্হান নির্ধারণ করার চেষ্টা করি।কিন্তু কেউ জায়গা দিতে রাজি না হওয়ায় টয়লেট নির্মানে বিলম্ব হয়।তার পরেও জুলাই ২০২২ এর মধ্যে কাজ করতে না পারলে আমি টাকা ফেরত দিয়ে দেব।আত্মসাৎ করার প্রশ্নই ওঠেনা।পুরো টাকা উঠিয়ে কাজ না করলে আত্মসাৎ কথাটি আসতে পারে।স্হানীয় ব্যাবসায়ী ও গন্যমান্য ব্যাক্তিদের সাথে আলাপ করলে তারা জানান গৌতমের বাবা সতীশ শেখর রায় গনকপাড়া বাজার প্রতিষ্ঠা করেছে। গৌতম সারাজীবন এই বাজারের উন্নয়নের স্বার্থে কাজ করেছেন।নিজের অর্থ ব্যায় করে সুখে দুখে সবসময় আমাদের পাশে ছিলো। তার নামে এই ধরনের মিথ্যা খবর প্রকাশ করা অত্যন্ত দুঃখ জনক। শুধু তাই নয় ইউ পি সদস্য এলাকায় উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকার কারনে আগামীতে তিনি ষাহাতে সামনের দিকে অগ্রসর না হতে পারে সেই জন্য একের পর এক এহেন মিথ্যে তথ্য প্রচার করে। ইউ পি সদস্য জানান, আমাকে যতই হেয় করুক না কেন আমি সব সময়ই ন্যায়ের পক্ষে আছি এবং থাকবো।

বিজ্ঞাপন

ব্রেকিং নিউজ